Friday, October 7, 2022
HomeStory  সালার দি ইউনি

  সালার দি ইউনি

                  সালার দি ইউনি

যদি কখনো পাখির মতো আকাশ এ উড়তে পারতাম ,ওই নীল আকাশ এর মেঘে ভেসে বাড়াতে পারতাম ;তাহলে কতোই না ভালো হত; পৃথিবী তে এমন একটি স্থান আছে যেখান থেকে সাময়িক সময় এর জন্য মনে হবে আমি আকাশ এ ভেসে আছি। বলছিলাম পৃথিবীর সব থেকে বড় প্রাকৃতিক আয়না ভূমি বলিবিয়ার সালার দি ইউনি এর কথা।
বলিভিয়ায় অবস্থিত আলতিপ্লানো মালভূমির একটি অংশ সালার দি ইউনি নামে পরিচিত। সালার শব্দটি একটি স্প্যানিশ শব্দ যার মানে লবনের সমতল।আর ইউনি আমরার ভাষা থেকে উদ্ভূত শব্দ।যার মানে পরিবেষ্টন করা।সালার দি ইউনির মানে আবদ্ধভাবে পরিবেষ্টন লবনের সমতল। এটি দক্ষিণ-পশ্চিম বলিভিয়ার ড্যানিয়েল ক্যাম্পোস প্রদেশের চিলি সীমান্ত ঘেঁষে অবস্থিত। সালার দি ইউনি অঞ্চলটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ১২,০০০ ফুট উচ্চতায় অবস্থিত। এটি ১০, ৫৮২ বর্গ কিলোমিটার বা ৪,০৮৬ বর্গ মাইল এলাকা জুড়ে বিস্তৃত একটি মালভূমি অঞ্চল।

ডিসেম্বরের থেকে মার্চ পর্যন্ত বর্ষাকালীন বৃষ্টি ও আশেপাশের হ্রদগুলো থেকে প্রবাহিত হওয়া জল, শুভ্র সালার দি ইউনিকে এক জলাশয়ে পরিণত করে। আর তখন মাইলের পর মাইল জুড়ে সৃষ্টি হাওয়া এই বিশাল প্রকৃতিক আয়নায় আমাদের ব্যবহৃত প্রচলিত দর্পণের ন্যায় চমৎকার সব প্রতিবিম্ব দৃশ্যমান হয়। শুষ্ক মৌসুমে সালার থাকে ধবধবে সাদা। পানি শুকিয়ে এখনকার ভূমি যেন এক নিখুঁত টলুইন আকৃতির বিশাল লবণের মরুভূমিতে পরিণত হয়।বর্ষার সেই আয়না শুষ্ক মৌসুমে ফেটে ষড়ভুজ আকারের একেকটি লবণ খন্ডে শ্রেণীবদ্ধ হয়। এই মৌসুমে (মে-নভেম্বর) সালারের সমতল ভূমির ওপর দিয়ে বিভিন্ন যানবাহনে করে চড়ে বেড়ানো যায়, যা বর্ষায় সম্ভব হয় না।

সালার ডি ইউনিতে ভ্রমণের জন্য দুটি ভিন্ন মৌসুম রয়েছে। এর একটি বর্ষা মৌসুম (ডিসেম্বর থেকে এপ্রিল)। সেসময় দেশ-বিদেশ থেকে ভ্রমণপিপাসু মানুষ এখানে তৈরি হাওয়া প্রাকৃতিক আয়না দেখতে ছুটে আসেন । অপরটি শুষ্ক মৌসুম (মে থেকে নভেম্বর)। তখন এই স্থানের তাপমাত্রা শীতল থাকে এবং স্থল শক্ত হয়ে যায়। ভ্রমণকারীরা এক শুভ্র অপার্থিব প্রাকৃতিক দৃশ্য উপভোগের মনোবাসনা নিয়ে এখানে আসেন।

আরও পড়ুনঃ  হিট স্টোক মরণ ব্যাধি

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments