Friday, October 7, 2022
HomeStoryপামুক্কালে একটি দর্শনীয় স্থান

পামুক্কালে একটি দর্শনীয় স্থান

              পামুক্কালে একটি দর্শনীয় স্থান

পামুক্কালে একটি দর্শনীয় স্থান। এটি একটি বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান হিসেবে স্বীকৃত। ১৯৮৮ সালে একে বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান হিসেবে ইউনেস্কো ঘোষণা করে।

পামুক্কালে হল বিস্ময়কর এক লেক।পামুক্কালে এর অর্থ হল তুর্কী ভাষায় “তুলার প্রাসাদ”। পামুক্কালে তুরস্কে অবস্থিত। তুরস্কের এক অংশ এশিয়া মহাদেশে আর বাকি অংশ টুকু হল ইউরোপ মহাদেশে। এই আজব দেশেরই এক আজব জায়গা হল এই পামুক্কালে।পামুক্কালে মেন্দেরেস নদীর উপত্যকায় অবস্থিত, সেখানকার লেকগুলো দেখলে আশ্চর্য না হয়ে উপায় নেই। সাদা নুনের বিশাল বিশাল স্তরে ছোট্ট ছোট্ট সব জলাধার। পামুক্কালেতে ১৭টি উষ্ণ জলধারা রয়েছে ।

 

আজব দেশেরই এক আজব জায়গা এ পামুক্কালে। এখানকার লেকগুলো দেখলে সত্যি আশ্চর্য হয়ে যেতে হয়। সাদা লবণের বিশাল বিশাল স্তরে ছোট্ট ছোট্ট জলাধার। সেগুলোতে আবার মানুষ আগে ঘটা করে গোসলও করতে যেত। তারা বিশ্বাস করত ওখানে গোসল করলে শরীর ভালো থাকে। এখনও বিষয়টি অনেকেই বিশ্বাস করে। তবে এখন আর ওখানে কেউ গোসল করতে পারে না। কারণ পরিবেশ দূষণ রুখতে তুরস্ক সরকার লেকগুলোতে দর্শনার্থীদের গোসল নিষিদ্ধ করেছে। ছোট লেকগুলোর যেন কোনো ক্ষতি না হয় সে ব্যাপারে সতর্ক নজর রাখা হয়।

এই লেকগুলো প্রায় ২০ লাখ বছরের পুরনো। তুরস্ক ভূমিকম্পপ্রবণ দেশ। বহু বছর আগে এখানে একটা বড় রকমের ভূমিকম্পে মাটিতে অনেক ফাটল সৃষ্টি হয়েছিল। আর তখন সেখান দিয়ে মাটির নিচের ক্যালসিয়াম কার্বনেটে ভর্তি গরম পানি বেরিয়ে এসে উপরে জমা হতে লাগল। কিন্তু পানি গরম হলে তো বাষ্প হয়ে যায়। সেই পানিও বাষ্প হয়ে গেল। থেকে গেল শুধু ক্যালসিয়াম কার্বনেট। ক্যালসিয়াম কার্বনেট হল একধরনের লবণ। সেই লবণগুলো জমে জমে তৈরি হল লেকগুলোর কাঠামো। আর তারপর সেগুলো যখন শক্ত হয়ে গেল তখন সেখানে বৃষ্টির পানি জমে সৃষ্টি হল এই আজব লেকগুলো।

পৃথিবীর বহুদেশ থেকে এই লেকে মানুষ বেড়াতে আসে। এই লেকের সৌন্দয দেখে পযাটোকরা প্রাণভরে উপভোগ করে এই লেকের সৌন্দয।

আরও পড়ুনঃ  সালার দি ইউনি

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments