Friday, October 7, 2022
HomeHealth গলাব্যাথা বা টনসিলের প্রাথমিক চিকিৎসা

 গলাব্যাথা বা টনসিলের প্রাথমিক চিকিৎসা

                                   গলাব্যাথা বা টনসিলের প্রাথমিক চিকিৎসা

আমরা প্রতিদিন জীবন আর জীবিকার প্রয়োজনে ঘর থেকে বাহির হয়ে বিভিন্ন রকম ভাইরাস দ্বারা আক্রন্ত হয়ে ঘরে ফিরি।যাদের শরিরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেশি থাকে তারা সুস্থ থাকে।আর যাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম তারা বিভিন্ন ভাইরাস জনিত রোগে আক্রন্ত হয়।যেমন ঠান্ডা কাশি জ্বর টনসিল চিকেন পক্স মত রোগ। এর মধ্যে অসস্তিকর রোগ হলো টনসিল ।

আজ টনসিল নিয়ে কথা বলবোঃ

অনেক সময় আমাদের ঠান্ডা কাশির জন্য গলা ব্যাথা হয়। আমাদের ঢোক গিলতে কষ্ট হয়।তখন বুঝতে হবে আমরা টনসিল ভাইরাসে আক্রন্ত হয়েছি।এই রোগ সব বয়েসিদের হতেপারে ।মানুষের জিভার পিছনে গলার দুপাশে দুটি মাংশ পিন্ডো দেখা যায় এটাই টনসিল। এটি দেখতে মাংশপিন্ডের মত দেখা গেলেও আসলে এটা একটি একটি টিস্যু।এর কাজ হলো নাক মুখ গলা দিয়ে কোন ভাইরাস যাতে পেটে ঢুকতে নাপারে তার বাধা দেওয়া।
ঠান্ডা কাশির ভাইরাসই দায়ী টনসিলের জন্য।টনসিলের কারনে গলা ব্যাথা হলে চিন্তীত না হয়ে ঘরোয়া উপায়ে দুর করা সম্ভব ।

এখন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে ঘরোয়া উপায়ে টনসিল ব্যাথা নিরময় করা যায়ঃ

০লেবুর রসঃ ১৫০ থেকে ২০০ মিলিগ্রাম ঊষ্ণ গরম পানিতে এক চামচ লেবুর রস এক চামচ মধু আর আধা চামচ লবন ভালো করে মিশিয়ে যত দিন গলা ব্যাথা থাকে তত দিন পযন্ত এই মিশ্রন সেবন করুন ।টনসিল ব্যাথা দুর করার জন্য খুব ভালো টনিক।

০হলুদ-দুধঃএক কাপ গরম দুধের সাথে এক চিমটি হলুদ মিশিয়ে নিন।এক্ষেত্রে বলে রাখা ভালো ছাগলের দুধ হলে বেশি ভালো। কারন ছাগলের দুধে অ্যান্টিব্যায়োটিক উপাদান বেশি থাকে।ছাগলের দুধ পাওয়া না গেলে গরুর দুধে হলুদ মিশিয়ে খেলেও উপকার পাওয়া যায়। কারন হলুদ হলো অ্যান্টি ইনফ্লামেন্টরী অ্যান্টিব্যায়োটিক ওঅ্যান্টি অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ একটি উপাদান।যা গলা ব্যাথা দুর করে টনসিল সংক্রমন দুর করতে সাহায্য করে।

০লবন পানিঃগলা ব্যাথা শুরু হলে আমরা যে কাজটি আমরা সচারআচার করে থাকি তাহলো উষ্ণ গরম পানি দিয়ে গড়গড়া করি।এটা টনসিল সংক্রমন রোধ করে গলাব্যাথা কমাতে সাহায্য করে।এছাড়া লবন পানি দিয়ে গড়গড়া করলে গলায় ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমনে আশঙ্কাও দুর করে দেয়।

০আদা চাঃএক-দেড় কাপ পানিতে এক চামচ আদা কুচি আর আন্দাজ মত চা দিয়ে ১০-১২ মিনিট গরম করি।দিনে ২-৩ বার এটি পান করি।আদায় অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল অ্যান্টি ইনফ্লামেন্টরী উপাদান বেশি থাকে যা সংক্রমন ছড়াতে বাধা দেয় এবং গলা ব্যাথা দুর করতে সাহায্য করে।

০সবুজ চা এবং মধুঃএক কাপ গরম পানিতে আধা চামচ সবুজ চাপাতা আর সাথে এক চামচ মধু দিয়ে ১০-১২ মিনিট ফুটিয়ে আস্তে আস্তে চুমুক দিয়ে পান করুন।সবুজ চায়ে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে যা সব রকম ক্ষতিকর জীবাণু ধ্বংস করে থাকে।দিনে ২-৩ বার এ চা পান করুন ।টনসিলের উপকার পাবেন।

এছাড়া আরো অনেক ঘরোয়া উপয় আছে যে প্রদ্ধতিগুলো অবলম্বন করলে গলাব্য।থা টনসিল মত অসুখ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।এরপর যদি সমসার সমাধান না হয় তাহলে অবশ্যই আমাদের ডাক্তারের কাছে যেতে হবে চিকিৎসা নেওয়ার জন্য ।

আরও পড়ুনঃনতুন গুরু সান্নিধ্য পেতে মুখিয়ে ছিলেন জাতীয় দলের ফুটবলাররা

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments