Friday, October 7, 2022
HomeBadmintonইউ এস ওপেনে ব্রিটিশ কন্যার ইতিহাস

ইউ এস ওপেনে ব্রিটিশ কন্যার ইতিহাস

                                          ব্রিটিশ  কন্যার ইতিহাস

আজ থেকে বাইশ বছর আগে সেই ১৯৯৯ সালে বিশ্ববাসি ইউ এস ওপেনে দুই তরুণীর লড়াই দেখেছিল।সেবার সতেরো বছর বয়সী সেরেনা উইলিয়াম এর সাথে ১৮ বছরের মাটিনা হিঙ্গিজ লড়াই দেখেছিল।দীর্যাদিন পর আবার ২০২১ সালে সারাবিশ্ব দুই তরুণীর লড়াই দেখলো।একজন ব্রিটিশ কন্যা আঠার বছর বয়সি এমা আর কানাডিয়ান কন্যা লেয়লাহ ১৯ বছর বয়সি কন্যার।দুই তরুণীর লড়াইয়ে জয় পেয়েছে এমা।

 

এমা একজন ব্রিটিশ কন্যা হিসাবে পরিচিত হলেও জন্মসূত্রে তিনি একজন কানাডিয়ান।ছোটবেলা বাবার হাত ধরে কানাডা থেকে ইংলান্ডে আসেন। এরপর ব্রিটিশদের সাথে বেড়ে উঠে।আস্তে আস্তে তিনি বিভিন্ন খেলার সাথে যুক্ত হন।তবে তিনি টেনিসের প্রতি বেশি মনোযোগ দেন।এরপর ২০১৮ সালে তিনি উইম্বলডনে চতুথ রাউন্ডে উঠে টেনিস দুনিয়াকে চমকে দেন।একই বছর ইউ এস ওপেনে কোয়ালিফায়ার খেলে এসে সাড়া ফেলে দেন সারাদুনিয়া জুড়ে।

তার এই সফল্যের পর তিনি বলেন আমি বয়সে একজন তরুণী। তাই আমি কোন ম্যাচে চাপ নানিয়ে স্বাভাবিক খেলা খেলেছি।আর জয় পেয়েছি।আশাকরি প আগামী দিনগুলোতে এভাবে খেলে জয় পেতেপারি।এমনটা আশা রাখেন এমা।

০.১৯৬৮ সালের পর প্রথম ব্রিটিশ নারী হিসাবে ইউ এস ওপেন জয় করে।১৯৭৭ সালের পর আর কোন ব্রিটিশ কন্যা গ্র্যান্ড স্লাম জয় করেনি।শেষবারের মত ভারজিনিয়া ওয়েড গ্র্যান্ড স্লাম জয় করেন।
০.২০০৪ সালে মারিয়া শারাপোভা কম বয়সী হিসাবে উইম্বলডন জয় করেন ।এরপর এমা সবচেয়ে কম বয়সী হিসাবে গ্র্যান্ড স্লাম জয় করেন।ব্রিটেনের সবচেয়ে কম বয়সী হিসাবে চ্যাম্পিয়ান হয়।
০.২০১৪ সালে সেরেনার পর কোন মেয়ে কোন সেটে না হেরে ইউএস ওপেন জয় করে ইতিহাস গড়েন।

ইউ এস ওপেনে লড়াইয়ে দুই তরুণীর মধ্যে জয় পেয়েছে এমা।তবে লেয়লাহ আগামী দিনের উজ্জল ভবিষ্যতের ইঙ্গিত রাখলো।মেয়ে টেনিসে নতুন এক তারকার জন্ম হলো।এমনটাই ধারনা করছেন টেনিস তারকারা।টেনিসের ইতিহাসে অন্যতম তারকা মাটিনা নাভ্রাতিলোভা মতে এমা কেবল যাত্রা শুরু করেছেন।বহুদুর যাবেন তিনি।শুরুটা খুব ভালো করলো এমা।ইতিহাস গড়লেন ।দীর্য ৪৪ বছর পর কোন ব্রিটিশকন্যা গ্র্যান্ড স্লাম জয় করলো।
০.এমার এই সাফল্য শুভেচ্ছা জানিছে রানী এলিজাবেথ।রানী বলেন আমি তোমাকে তোমার সফল্যে জন্য অভিনন্দন জানাই।এত অল্প বয়সে এটি একটি অসাধারন সাফল্য। কঠোর পরিশ্রম আর সাধনার ফল তুমি পেয়েছো।
০বরিস জনসনের মতে এটা একটা অসাধারন ম্যাচ ।এমাকে অভিনন্দন।আমরা সবাই তোমাকে নিয়ে গর্বিত।
০নাভ্রাতিলোভার মতে একজন তারকার জন্ম হলো।এমা ইতিহাস গড়লো। তাকে আর কোয়ালিফায় খেলতে হবেনা।এক অসাধারন পতিভা।

কানাডায় জন্ম নেওয়া এমা ফাইনালে একজন কানাডিয়ানকে হারিয়ে কানাডাবাসির মন ভেঙ্গে দিলেও ব্রিটিশরা এমাকে পেয়ে খুব খুশি।কারন ৪৪ বছর পর এমার হাত ধরে আবার গ্র্যান্ড স্লাম ব্রিটিশদের ঘরে উঠলো।

আরো পড়ুনঃতিনটের বেশি লীগ খেলতে পারবে না আফগান ক্রিকেটাররা

 

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments